মদ পান কারি সম্পর্কে ইসলামিক তথ্য

আবদুল্লাহ ইবনু আমর (রাঃ) বলেন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন পিতা – মাতার অবাধ্য সন্তান , জুয়া ও লটারীতে অংশগ্রহণকারী , খোটা দানকারী এবং সর্বদা মদপানকারী জান্নাতে যাবে না। ইবনু ওমর (রাঃ) বলেন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন তিন শ্রেণীর লােকের প্রতি আল্লাহ তা ‘ আলা জান্নাত হারাম করেছেন । ( ১ ) সর্বদা মদপানকারী , ( ২ ) পিতা – মাতার অবাধ্য সন্তান ও ( ৩ ) পরিবারে বেপর্দার সুযােগ দানকারী ।আবূ মূসা আশআরী (রাঃ) বলেন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন , তিন শ্রেণীর লােক জান্নাতে যাবে না । ( ১ ) সর্বদা নেশাদার দ্রব্য পানকারী । ( ২ ) আত্মীয় সম্পর্ক । বিচ্ছিন্নকারী । ( ৩ ) যাদুকে বিশ্বাসকারী।

আবদুল্লাহ ইবনু আমর (রাঃ) বলেন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন যে ব্যক্তি নেশাদার দ্রব্য পান করবে আল্লাহ তার ৪০ দিন ছালাত কবুল করবেন না । যদি এ অবস্থায় মারা যায় তাহলে জাহান্নামে যাবে । যদি তওবাহ করে তাহলে আল্লাহ তার তওবাহ কবুল করবেন । আবার নেশাদার দ্রব্য পান করলে আল্লাহ তার ৪০ দিন ছালাত কবুল করবেন না । যদি এ অবস্থায় মারা যায় তাহলে জাহান্নামে যাবে । আর যদি তওবাহ করে তবে আল্লাহ তার তওবাহ কবুল করবেন । আবার যদি নেশাদার দ্রব্য পান করে আল্লাহ তার ৪০ দিন ছালাত কবুল করবেন না । এ অবস্থায় মারা গেলে জাহান্নামে যাবে । তওবাহ করলে আল্লাহ তার তওবাহ কবুল করবেন । লােকটি যদি চতুর্থবার মদ পান করে আল্লাহ তাকে কিয়ামতের দিন ‘ রাদাগাতুল খাবাল ’ পান করাবেন । সাহাবাগণ জিজ্ঞেস করলেন , হে আল্লাহ্‌র রাসূল ! রাদাগাতে খাবাল ‘ কী ? রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন আগুনের তাপে জাহান্নামীদের শরীর হতে গলে পড়া রক্তপূজ মিশ্রিত গরম তরল পদার্থ।

আনাস (রাঃ) হতে বণিত মদের সাথে সম্পর্ক রাখে এমন দশ শ্রেণীর লােকের প্রতি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম অভিশাপ করেছেন । ( ১ ) যে লােক মদের নির্যাস বের করে ( ২ ) প্রস্ত তকারক ( 3 ) মদপানকারী ( ৪ ) যে পান করায় ( ৫ ) আমদানীকারক ( ৬ ) যার জন্য আমদানী করা হয় ( ৭ ) বিক্রেতা ( ৮ ) ক্রেতা ( ৯ ) সরবরাহকারী এবং ( ১০ ) এর লভ্যাংশ ভােগকারী ।

আবু মালিক আশ ‘ আরী বলেন নবী করীম মীর বলেছেন , আমার কিছু উম্মত মদ পান করবে এবং তার নাম রাখবে ভিন্ন । তাদের নেতাদেরকে গায়িকা ও বাদ্য যন্ত্র দিয়ে সম্মান করা হবে । আল্লাহ তা ‘ আলা তাদেরকে ভুমিকম্পের মাধ্যমে মাটিতেই ধসিয়ে দিবেন । আর তাদেরকে বানর ও শুকুরে পরিণত করবেন । হাদীছে বুঝা গেল মানুষ মদ্যপান করবে , তবে মদের নাম অন্য হবে আর নেতা ও দায়িত্বশীলদের সর্বক্ষণের সঙ্গী হবে বাদ্য যন্ত্র ও গায়িকা এদের চরিত্র হবে ননাংরা , এদের প্রিয় কাজ হবে অশ্লীলতা । তাদের স্বভাব ও কৃষ্টি – কালচার হবে শুকুর ও বানােরের ন্যায় । এরা স্বপরিবারে পাশ্চাত্যদের স্বভাব চরিত্র গ্রহণ করবে ।

মু ‘ আয ইবনু জাবাল হতে বর্ণিত , রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ওয়াসাল্লা বলেছেন ইসলামের সূচনা বা রাজত্ব শুরু হয়েছে নবী ও দয়া দ্বারা । তারপর রাজত্ব আসবে খেলাফত ও রহমত দ্বারা , তারপর আসবে অত্যাচারী শাসকদের যুগ । তারপর আসবে কঠোরতা , উচ্ছংখলতা , বিপর্যয় সৃষ্টিকারীর যুগ । এসব অত্যাচারী শাসকেরা রেশমী কাপড় পরিধান করা , অবৈধভাবে নারীদের লজ্জাস্থান উপভােগ করা এবং মদ পান করাকে হালাল মনে করবে । এরপরও তাদের প্রচুর রূযী দেয়া হবে । দুনিয়াবী যে কোন কাজে তাদের সাহায্য করা হবে । অবশেষে এ পাপের মধ্যে লিপ্ত থেকে আল্লাহর সম্মুখে উপস্থিত হবে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *