জেনে শুনে নিজ পিতা ব্যতীত অন্যকে পিতা বলে স্বীকারকারী

জেনে শুনে অন্যকে পিতা বলে দাবী করা কুফুরী । আল্লাহর অভিশাপ হবে তার উপর জান্নাত হারাম হয়ে যাবে । সা ‘ দ ইবনু আবী ওয়াক্কাছ এবং আবূ বাকরা (রাঃ) বলেন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন যে ব্যক্তি তার পিতা ব্যতীত অন্যকে পিতা বলে দাবী কওে , অথচ সে জানে যে সেই ব্যক্তি তার পিতা নয় , তাহলে তার প্রতি জান্নাত হারাম । আবু হুরায়রাহ (রাঃ) বলেন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন তােমরা তােমাদের পিতা হতে বিমুখ হয়াে না । যে ব্যক্তি তার পিতা হতে বিমুখ হ ‘ ল অর্থাৎ অন্যকে পিতা বলে স্বীকার করল , সে কুফুরী করল।

আলী (রাঃ) বলেন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন যে ব্যক্তি নিজ পিতা ব্যতীত অন্যকে পিতা বলে দাবী করে অথবা নিজ অভিভাবক ব্যতীত অন্যকে অভিভাবক বলে স্বীকার করে , তার প্রতি আল্লাহ , সকল ফেরেশতাগণ এবং সকল মানুষের অভিশাপ । তার নফল ও ফরয কোন ইবাদতই কবুল করা হবে না। আবু যার (রাঃ) বলেন আমি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কে বলতে শুনেছি যে ব্যক্তি জেনে শুনে নিজ পিতা ব্যতীত অন্যকে পিতা বলে দাবী করে , সে ইসলামের অন্তর্ভুক্ত নয় । যে ব্যক্তি এমন বস্তুর দাবী করে যা তার নয় , সে আমার শরী ‘ আতের অন্তর্ভুক্ত নয় । সে যেন তার স্থান জাহান্নামে করে নেয় । আর কেউ যদি কাউকে কাফির অথবা আল্লাহর শত্রু বলে সম্বােধন করে , আর সেই ব্যক্তি প্রকৃতপক্ষে তা না হয় , তাহলে সে ব্যক্তি কাফির বা আল্লাহর শত্রু হয়ে যাবে।

আলী (রাঃ) বলেন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন যে ব্যক্তি নিজ পিতা ব্যতীত অন্যকে পিতা বলে দাবী করে অথবা নিজ অভিভাবক ব্যতীত অন্যকে অভিভাবক বলে স্বীকার করে , তার প্রতি আল্লাহ , সকল ফেরেশতাগণ এবং সকল মানুষের অভিশাপ । তার নফল ও ফরয কোন ইবাদতই কবুল করা হবে না। আবু যার (রাঃ) বলেন আমি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কে বলতে শুনেছি যে ব্যক্তি জেনে শুনে নিজ পিতা ব্যতীত অন্যকে পিতা বলে দাবী করে , সে ইসলামের অন্তর্ভুক্ত নয় । যে ব্যক্তি এমন বস্তুর দাবী করে যা তার নয় , সে আমার শরী ‘ আতের অন্তর্ভুক্ত নয় । সে যেন তার স্থান জাহান্নামে করে নেয় । আর কেউ যদি কাউকে কাফির অথবা আল্লাহর শত্রু বলে সম্বােধন করে , আর সেই ব্যক্তি প্রকৃতপক্ষে তা না হয় , তাহলে সে ব্যক্তি কাফির বা আল্লাহর শত্রু হয়ে যাবে।

পৃথিবীর সবচেয়ে বড় মহাপাপ হচ্ছে আল্লাহর সাথে শিরক করা। দ্বিতীয় মহাপাপ হচ্ছে বাবা মার অস্বীকারকারী বা অবাধ্য কারী সন্তান। পিতা মাতার অবাধ্য কারী সন্তান কখনো জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবে না। পিতা-মাতা এমন একটি মাধ্যম যার মাধ্যমে আপনি আপনার জীবনের সকল পাপ মোচন করে জান্নাতে প্রবেশ করতে পারেন। প্রিয় নবী হযরত মোহাম্মদ সাল্লালাহু সালাম জুমার দিনে মেম্বারে উঠলেন । তিনি তিন বার আমিন বলেন। তারপর সাহাবীরা জিজ্ঞেস করলেন হে আল্লাহর রসুল আপনি কেন আমিন বলেন? তিনি বললেন যে ব্যক্তি বৃদ্ধ অবস্থায় পিতা-মাতা পেয়ে নিজের গুনা ক্ষমা করাতে পারেনি সে ধ্বংস হোক। সুতরাং মাতা পিতার সাথে এমন আচরন করতে হবে যেন তারা সবসময় সর্বাবস্থায় সন্তুষ্ট থাকেন । তাদের সন্তানের প্রতি তাহলেই বাবা-মার দোয়া আল্লাহর কাছে গ্রহণযোগ্য হবে এবং এর বিনিময় জান্নাত পাবে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *