ঘরে বসেই তৈরি করুন ফ্রেঞ্চ ফ্রাইস!

লোভনীয় খাবারের নাম মুখে আসলেই কেমন যেন জিভে পানি চলে আসে। আর তার সাথে যদি খাবারটি নামি দামি কোন রেস্টুরেন্ট থেকে বা সুপারসপ থেকে কিনে না এনে নিজেই বাড়িতে বসে রান্না করে খাওয়া যায়, তাহলে স্বাদটা কেমন যেন আরো একটু বেশি ই ভালো হয়। আর সেই রকম একটি রেসিপি কিভাবে ঘরে বসেই রান্না করবেন তা আপনাদের কাছে তুলে ধরা হলো। যার নামটি হচ্ছে- ফ্রেঞ্চ ফ্রাই!

ফ্রেঞ্চ ফ্রাই করার ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই ভালো আলু বেছে নিতে হবে। যেন ফ্রাই করার পর তা ভেঙে না যায় অথবা নরম না হয়ে যায়। এছাড়াও আরো বিভিন্ন কারন আছে। তবে সব কারনের মাঝে সব চেয়ে বড়ো কারন হলো যেহেতু ফ্রেঞ্চ ফ্রাই এর প্রধান উপাদান-ই হচ্ছে আলু। তাই এর ক্ষেত্রে অবশ্যই ভালো আলুটাই নিতে হবে।

যাই হউক, এখন লম্বা দেখে ভালো দুটি আলু নিন। আলু দুটোকে ভালো ভাবে ছিলে নিন। তারপর ছিলে নেয়া আলু ভালো ভাবে ধুয়ে নিন। এখন আলুর পানি গুলোকে ভালোভাবে ঝরিয়ে নিন। এখন আলুকে সমান ভাবে ফালা ফালা করে নিন। একবারে বেশি চ্যাপ্টা করবেন না, আবার একদম পাতলাও করবেন না। মিডিয়াম রাখার চেষ্টা করবেন। তারপর লম্বা লম্বিভাবে কেটে নিন। আবারও ভালোভাবে পানিতে ধুয়ে নিন।

এখন একটি পাতিলে পরিমান মতো গরম পানি করুন। আর সেই পানিতে এক টেবিল চামচ পরিমান লবন দিয়ে দিন। পানি পর্যাপ্ত গরম হয়ে গেলে কেটে নেয়া আলু গুলো সেখানে সিদ্ধ করে নিন। তবে সিদ্ধ করার ক্ষেত্রে অবশ্যই ৩ মিনিট সিদ্ধ করলেই হবে। সিদ্ধ করা আলু স্বাভাবিক কোনো পাত্রে রাখবেন না। সেটা অবশ্যই কিচেন টাওয়েলের উপর রাখতে হবে। যেন আলুতে থাকা পানি খুব তারাতারি শুষে নিতে পারে।

এখন একটি ডিপ প্যানে তেল গরম করুন। যেহেতু আলুগুলো ফ্রাই করা হবে তাই তেল বেশি পরিমানে লাগবে। তেল গরম হয়ে গেলে সিদ্ধ করা আলুগুলোকে তেল এ দিয়ে ভেজে নিন। তবে ভেজে নেয়ার সময় খেয়াল রাখবেন একবারে যেন বেশি আলু না দেয়া হয়। কেননা একসাথে বেশি আলু পরলে ভালোভাবে ভাজা নাও হতে পারে। তাই অল্প অল্প করে দিয়ে ভালোভাবে ভেজে করে নিন। খুব বেশই না মিডিয়াম আচে ১০ মিনিট ভাজলেই হবে।

এখন ভেজে নেয়া আলুগুলোকে আবারও কিচেন টাওয়েলের উপর রেখে তেল শুন্য করে নিন। তারপর সেগুলোকে ৩০ মিনিট ফ্রিজে রেখে দিন। ৩০ মিনিট রেখে দেয়ার পর সেগুলোকে বের করে ডিপ প্যানে করা গরম করা তেলে অল্প করে দিয়ে আবারও ভেজে নিন। ৩ মিনিটের মতো ভাজলে দেখবেন আলুতে কালারের পরিবর্তন হচ্ছে। আমি বলতে চাচ্ছি আলুর কালার অনেকটাই ব্রাউন কালার হবে। কালারে পরিবর্তন আসলে প্যান থেকে নামিয়ে নিন। দেখবেন মচমচে হয়েছে!

তৈরী হয়ে গেল আপনার পছন্দের ফ্রেঞ্চ ফ্রাই! এখন সচ নিয়ে চটপট খেয়ে ফেলুন আপনার লোভনীয় এবং তৈরী করা ফ্রেঞ্চ ফ্রাই। আশা করি ভালো লাগবে আপনাদের। সবাই ভালো থাকবেন আর আমার জন্য দোয়া করবেন, যেন নতুন কোনো রেসিপি নিয়ে আসতে পারি আপনাদের সামনে, ধন্যবাদ!

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *